সেন্টমার্টিনে তিন ট্রলার ডুবি, ট্রলারসহ ১৪ মাঝিমাল্লা এখনো নিখোঁজ

বৃহস্পতিবার, ১১ এপ্রিল ২০১৯ | ১১:০১ পূর্বাহ্ণ | 313 বার

সেন্টমার্টিনে তিন ট্রলার ডুবি, ট্রলারসহ ১৪ মাঝিমাল্লা এখনো নিখোঁজ

সেন্টমার্টিনের অদূরে বঙ্গোপসাগরে মাছ ধরার ট্রলার ডুবির ঘটনা ঘটেছে। এঘটনায় এখন পর্যন্ত ১৪জন মাঝিমাল্লা নিখোঁজ রয়েছেন।
গতকাল বুধবার ভোররাতে হঠাৎ করে কালবৈশাখী ঝড়ো হাওয়ায় কবলে পড়ে তিনটি ট্রলার ডুবির ঘটনায় ১৮জন মাঝিমাল্লাকে উদ্ধার করা হলেও এখনো ৬জন মাঝিমাল্লা নিখোঁজ রয়েছেন। তবে এসময় আরও একটি ট্রলার আটজন মাঝিমাল্লাসহ নিখোঁজ রয়েছে দাবী করেছেন ট্রলার মালিক সমিতি। এ তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন শাহপরীর দ্বীপ মিস্ত্রিপাড়া ট্রলার মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ জোবাইর।
ট্রলার মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ জোবাইর বলেন, আমার মালিকানাধীন একটি ট্রলারসহ চারটি ট্রলার নিখোঁজ রয়েছে। তবে এরমধ্যে ১৮জন জেলেকে উদ্ধার করা সম্ভব হলেও এখন পর্যন্ত ১৪জন নিখোঁজ রয়েছে।
ট্রলার মালিকেরা জানায়, উপজেলার সাবরাং ইউনিয়নের শাহপরীর দ্বীপ দক্ষিণপাড়ার বদিউল আলম, কবির আহমদ ও মিস্ত্রিপাড়ার মোহাম্মদ জোবাইর মালিকানাধীন ট্রলারসহ একাধিক ট্রলার সাগরে মাছ ধরতে যায়। ট্রলারসমুহ নোঙ্গর করে জাল ফেলে মাছ শিকার করছিলেন। এসময় হঠাৎ করে কাল বৈশাখি ঝড়ে উত্তাল ঢেউয়ের কবলে পড়ে তিনটি ট্রলার ডুবে গেছে। এসময় আশেপাশের থাকা মো. ইসমাঈল ও মো আমিনের মালিকাধীন ট্রলার ১৮জনকে জেলেকে ভাসমান অবস্থায় উদ্ধার করলেও এখন পর্যন্ত মোহাম্মদ রশিদ, মোহাম্মদ ইব্রাহিম, আবুল হোসেন, মতিউর রহমান, শাহ আলম ও আবদুল্লাহ নিখোঁজ রয়েছেন। অপরদিকে, একই সময়ে শাহপরীর দ্বীপের দক্ষিণপাড়া মো. আব্দুল্লাহর মালিকাধীন ট্রলারসহ ৮জন মাঝিমাল্লা নিখোঁজ রয়েছে।
উদ্ধার হওয়া ট্রলারের মাঝি মো. ইলিয়াছ ও ইউছুফ জালাল জানান, জাল ফেলে মাছ ধরার সময় হঠাৎ করে ঝড়ো হওয়া শুরু হয়। কিছু বুঝে উঠার আগে আমাদের ট্রলার ঢেউয়ের কবলে পড়ে ডুবে যায়। পরে আমরা কয়জন পাশ^বর্তী ট্রলারের সহযোগিতায় উঠে আসতে পারলেও তিনটি ট্রলারের ছয়জন এখনো নিখোঁজ রয়েছে।
সাবরাং ইউপির ৭ নম্বর ওযার্ডের ইউপি সদস্য নুরুল আমিন বলেন, স্থানীয় চারজন বাসিন্দার তিনটি মাছ ধরার ট্রলার ডুবি ও একটি জেলেসহ নিখোঁজ রয়েছে বলে শুনেছি। এ পযর্ন্ত ১৪জন জেলে নিখোঁজ রয়েছেন। তবে আবদুল্লাহ মালিকাধীন ট্রলারের মাঝিমাল্লাদের নাম-ঠিকানা এখনো নিশ্চিত হওয়া সম্ভব হয়নি।
কোস্টগার্ড সেন্টমার্টিন ষ্টেশন কমান্ডার লেফটেন্যান্ট ফয়েজুল ইসলাম মন্ডল বলেন, সাগরে মাছ ধরার সময় ট্রলার ডুবির বিষযটি শুনেছি। তবে মালিকপক্ষের কাছ থেকে এ পর্যন্ত কেহ কোনো কিছুই জানাইনি । এরপরও বিয়ষটি নিয়ে খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে।

দৈনিক দৈনন্দিন এ প্রকাশিত কোন ছবি,সংবাদ,তথ্য,অডিও,ভিডিও কপিরাইট আইনে অনুমতি ব্যতিরেখে ব্যবহার করা যাবে না ।

Copyright @ 2020

Development by: webnewsdesign.com

error: Content is protected !!