সন্তোষ কুমার শীল : একজন সমাজসেবক ও সংগঠক

বৃহস্পতিবার, ২৩ এপ্রিল ২০২০ | ৫:৪২ অপরাহ্ণ | 159 বার

সন্তোষ কুমার শীল : একজন সমাজসেবক ও সংগঠক

যারা কাজ করেন তাঁরা সবখানেই উপযোগী। কাজের জন্য নির্দিষ্ট কোন স্থান, কাল, পাত্রের প্রয়োজন পরে না। কথায় বলে ঢেঁকি স্বর্গে গেলেও বাড়া ভানে। তেমনি একজন আমার প্রিয় মানুষ টেকনাফ সরকারি কলেজের পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগ এর সহকারী অধ্যাপক সন্তোষ কুমার শীল। ছোট বেলা থেকেই পরোপকারী, মহানুভব, উদার মনের অধিকারী। সন্তোষ স্যারকে আমি খুব ভালো ভাবেই জানি।

সাহিত্য সংস্কৃতিতে অগ্রগামি উর্বর গ্রাম কানুনগো পাড়ার কৃতি সন্তান সন্তোষ কুমার শীল একাধারে একজন সম্পাদক, সাহিত্যিক, সংগঠক ও রাজনীতিবিদ। সংস্কৃতির অলিতে গলিতে তাঁর অবাধ বিচরণ চোখে পরার মতো। তাঁরই প্রণোদনায় ও প্রচেষ্টায় প্রতিষ্ঠিত দীপায়ন খেলাঘর আসর ১৯৮৬ থেকে অদ্যাবধি কানুনগোপাড়ার সংস্কৃতির আলোক বর্তিকা বহন করে চলেছে। তাঁরই প্রতিষ্ঠিত উদয়ন সংঘ গ্রামের তরুণ ও কিশোরদেরকে একই ছাউনির নিচে সংঘবদ্ধ করে ১৯৮৪ সাল থেকে ধর্মীয় মূল্যবোধ সৃষ্টিতে অবদান রেখে চলেছে।

পরবর্তীতে উচ্চ শিক্ষা গ্রহনের নিমিত্তে ঢাকায় অবস্থান কালে তিনি খেলাঘর কেন্দ্রীয় কমিটির সাথে সম্পৃক্ত থেকে খেলাঘর আন্দোলনকে বেগবান করার পাশাপাশি মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় নতুন প্রজন্ম গড়ে তোলার ক্ষেত্রে কাজ করেছেন। এছাড়া ঢাকায় স্রোত আবৃত্তি সংসদ, বিহঙ্গ নাট্য গোষ্ঠী, লেখক ফোরাম ইত্যাদি সংগঠনের সাথে ওতোপ্রোতভাবে জড়িত থেকেছেন অবিরত। ছাত্রজীবনে ১৯৮৮ -৯০ এর স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনে তিনি ছিলেন একজন রাজপথের যোদ্ধা। এরশাদ বিরোধী আন্দোলনে তাঁর অনবদ্য সাহিত্য কর্ম মানুষকে উৎসাহিত করেছে। ঢাকার জিরো পয়েন্টে ১০ নভেম্বর বুকে পিঠে লেখা স্বৈরাচার নিপাত যাক গণতন্ত্র মুক্তি পাক নুর হোসেনের আত্মাহুতির তিনি একজন প্রত্যক্ষদর্শী।

ঢাকাস্থ চট্টগ্রাম ছাত্র ছাত্রী কল্যাণ সমিতির তিনি ছিলেন সাহিত্য সম্পাদক। তাঁর সম্পাদনায় প্রকাশিত হয়েছে চট্টলা (ম্যাগাজিন)। শতাব্দী, কথা, পরাগ ম্যাগাজিন গুলো বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন স্থানে তাঁর সম্পাদনায় প্রকাশিত হয়েছে। ছাত্রজীবন থেকে তিনি লেখালেখির সাথে জড়িত। নব্বইয়ের দশকে জাতীয় পত্রিকা গুলোতে তাঁর লেখালেখি ঝড় তুলেছিল। তাঁর বেশকিছু গ্রন্থও প্রকাশিত হয়েছে যেগুলো বাংলা একাডমির বই মেলায় পাঠক প্রিয়তা পেয়েছিল। তাঁর প্রথম ছড়াগ্রন্থ প্রকাশিত হয় ১৯৯৪ সালে। এছাড়া কবি গোলাম কিবরিয়া পিনুর সাথে সাইকেল পরিষদ নামে একটি সংগঠনের ব্যানারে সবাই কে পরিবেশ সচেতন করার প্রয়াস চালিয়েছেন। এ সময় তিনি সাইকেল শিরোনামে একটি কবিতাও রচনা করেন।

সাইকেল নাই তেল নাই বেশি খরচা
সাইকেল চালানোর হয় যদি চর্চা
কালো কালো ধোঁয়া থেকে পরিবেশ বাঁচবে
সুন্দর পৃথিবীতে খোকা খুকু নাচবে।……

১৯৮৮ এর ভয়াবহ স্মরণকালের স্মরণাতীত বন্যার সময় যুব ইউনিয়ন এর সাথে স্যালাইন তৈরি ও ত্রাণকার্য পরিচালনায় ছিলো তাঁর সিদ্ধ হস্ত।

১৯৯১ সালের প্রলয়ংকরী ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্থ মানুষের সাহায্যার্থে বিহঙ্গ নাট্য গোষ্ঠীর ব্যানারে গেণ্ডারিয়া আনজুমানে মফিদুল ইসলাম এর সহায়তায় চট্টগ্রামের বিভিন্ন এলাকায় ত্রাণ কার্যে কার্যকরী ভূমিকা পালন করেন।

চাকরি জীবনে তিনি লক্ষীপুরে রামগতি আহমদিয়া কলেজে থাকাকালীন সময়ে ১৯৯৬ সালে রামগতি খেলাঘর আসর প্রতিষ্ঠা করে ঐ এলাকার শিক্ষা, সাহিত্য ও সংস্কৃতির দ্বার উম্মোচন করেছেন।

১৯৯৭ সাল থেকে টেকনাফ সরকারি কলেজে শিক্ষকতার পাশাপাশি টেকনাফেও বিভিন্ন সাংগঠনিক কর্মকাণ্ডে জড়িত আছেন। তিনি একাধারে দশ বছর যাবত প্রথম আলো বন্ধু সভার
সভাপতির দায়িত্ব পালন করে চলেছেন। তিনি টেকনাফ কেন্দ্রীয় বিষ্ণু মন্দিরের সাধারণ সম্পাদক এবং টেকনাফ উপজেলা বাগীশিক এর সভাপতি। তাঁর হাত দিয়ে টেকনাফে কয়েকটি গীতা স্কুল স্থাপিত হয়েছে। প্রচার বিমুখ সহজ সরল এই মানুষটির কাজ করার প্রতি আগ্রহ প্রবল। তিনি লায়ন ক্লাবের অঙ্গ সংগঠন দি লিও ক্লাব ঢাকা বুড়িগঙ্গা এর একজন সক্রিয় সদস্য ছিলেন। বাংলাদেশ স্কাউট টেকনাফ সরকারি কলেজ রোভার স্কাউটস দলের RSL হিসেবে দীর্ঘ দিন যাবৎ দায়িত্ব রত। ২০১৭ সালে কক্সবাজার জেলায় শ্রেষ্ট RSL হিসেবে পুরস্কৃত হয়েছেন। ছাত্র ছাত্রী দের প্রিয় সন্তোষ স্যার টেকনাফ ডিগ্রি কলেজে সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক পরিষদ গঠন করে কলেজ প্রাঙ্গনে সংস্কৃতির ক্ষেত্র সৃষ্টি করেছেন। উপস্থাপকের ভূমিকায়ও তিনি অত্যন্ত সমাদৃত।

টেকনাফে মানসিক রোগিদের তহবিল ( মারোত) এর প্রধান উপদেষ্টা হিসেবে ২০১৭ সাল থেকে সংগঠনটিকে পরিচালনার পাশাপাশি পাগলদের জন্য নিয়মিত খাবারের যোগান দিয়ে থাকেন। বিশ্ব ব্যাপি বর্তমান করোনাকালীন পরিস্থিতিতে সরকার ঘোষিত লক ডাউনের পরিপ্রেক্ষিতে যখন দোকান পাট সব বন্ধ। মানসিক রোগিদের ও পাগলদের খাদ্য সংকট প্রকট। অনাহারে তারা মৃত প্রায়। এমতাবস্থায় মানসিক রোগিদের বাঁচাতে এগিয়ে এসেছে মারোত। সন্তোষ কুমার শীল এর নেতৃত্বে মারোতের সভাপতিসহ কমিটির সব সদস্যদের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় স্থানীয় শুভাকাঙ্ক্ষী , হিতৈষী, শুভানুধ্যায়ীদের অনুপ্রেরণা ও সহযোগিতায় রান্না করা খাবার বিতরণের উদ্যোগ গত ২৫ মার্চ থেকে শুরু হয়ে অদ্যাবধি চলমান।

শিক্ষক হিসেবে তিনি যেমন ছাত্র ছাত্রীদের প্রিয়ভাজন ও শ্রদ্ধাভাজন তেমনি সামাজিক কর্মকাণ্ডের একজন উজ্জ্বল পরিচিত সর্বজন শ্রদ্ধেয় সন্তোষ কুমার শীল করোনা ভাইরাস বিষয়ে মানুষ কে সচেতন করার লক্ষ্যে একাধিক ছড়া,গান, কবিতা, ও পুঁথি রচনা করেছেন , যা ইতোমধ্যে পাঠক প্রিয়তা পেয়েছে। জাতীয় জীবনের দুর্যোগ মোকাবেলায়, মানুষের কল্যাণে, সুন্দর সমাজ গড়ার অদম্য উচ্ছ্বাসে প্রানবন্ত সন্তোষ কুমার শীল দের মতো মানুষ দীর্ঘায়ূ লাভ করুক এই প্রত্যাশাই রাখছি।

একজন ছাত্রলীগ কর্মীর চোখে ২০ ঘণ্টার সাহারা খাতুন
দৈনিক দৈনন্দিন এ প্রকাশিত কোন ছবি,সংবাদ,তথ্য,অডিও,ভিডিও কপিরাইট আইনে অনুমতি ব্যতিরেখে ব্যবহার করা যাবে না ।

Copyright @ 2020

Development by: webnewsdesign.com

error: Content is protected !!