এইমাত্র পাওয়া

x

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অজানা আতংক!

শনিবার, ০৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ৫:০৫ অপরাহ্ণ | 117 বার

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অজানা আতংক!

উখিয়ার রোহিঙ্গা ক্যাম্প গুলোতে অজানা আতংক বিরাজ করছে। রোহিঙ্গা ছাড়া ও এনজিও সংস্থার লোকজনের মাঝে একধরনের ভয়ভীতি কাছ করছে বলে সংশ্লিষ্ঠ সূত্রে জানা গেছে।

গত কয়দিন ধরে ক্যাম্প অভ্যন্তরে আগের মত কোনো কোলাহল নেই। কিছু কিছু দোকান বন্ধ রয়েছে। রোহিঙ্গারা জানিয়েছেন, বিভিন্ন কারণে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে বসবাসকারী রোহিঙ্গাদের মাঝে উদ্বেগ উৎকন্ঠা কাজ করছে। কবে মিয়ানমারের ফিরে যাবে বলা যাচ্ছে না। কিছু সংখ্যাক রোহিঙ্গাদের কারনে এ অবস্থার সৃষ্টি হয়। বেশির ভাগ রোহিঙ্গা ভাল।

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে র্কমরত এনজিও সংস্থার লোকজন বলেছেন, সরকারের পক্ষ থেকে কয়েকটি এনজিও বন্ধ করে দিয়েছেন।কবে নাগাত আমাদের টা বন্ধ হয়। সেটার কারনে চিন্তায় আছি।

উখিয়ার বালুখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্পের পানের দোকানদার রোহিঙ্গা আবুল হোসেন বলেন, আগের চেয়ে বেচা বিক্রি কমে গেছে। রোহিঙ্গাদের মাঝে ভয় কাজ করছে।
উখিয়ার ময়নার ঘোনা রোহিঙ্গা ক্যাম্পের বাসিন্দারা বলেছেন, অন্যান্য সময়ের চেয়ে এখন ক্যাম্প অভ্যন্তরে সেনাবাহিনী, পুলিশ ও বিজিবি তৎপরতা বেড়ে গেছে।
উখিয়ার বালুখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মাঝি মুসা আলী বলেন, রোহিঙ্গারা সন্ধ্যার পর বাড়িতে থেকে বের হয় না। কারণ স্থানীয় আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকে নিষেধ করা হয়েছে।

উখিয়া -টেকনাফের রোহিঙ্গা ক্যাম্পের আইন শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণ করতে পুলিশের সক্ষমতা বাড়াতে দুটি আর্মড ব্যাটালিয়ান গঠন করার প্রক্রিয়া চলছে। স্বরাষ্ট মন্ত্রনালয়ের প্রস্তাব আসার পরপরই প্রাথমিক পর্যাযে ৫৮০জনের একটি আর্মড ব্যাটালিয়ান পুলিশ পাঠানোর উদ্যোগ নেওয়া হয়।পরে তা বাতিল করে ৮৮০জনের একটি টিম গঠন করে পাঠানোর উদ্যোগ চলছে। র‌্যাবের যৌথ ক্যাম্প স্থাপনের ও উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এজন্য জরুরী ভিত্তিতে স্হান চিহ্নিত করে জমি বরাদ্দের উদ্যোগের কথা জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক র্কমর্কতা।

উখিয়া উপজেলা প্রশাসনের সূত্রে জানা গেছে, মুক্তি কক্সবাজার,পালস, প্ল্যান, হেলভেটা সহ আরো বেশকয়েক টি এনজিও সংস্থার কার্যক্রম তদারকি করা হচ্ছে। রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসন বিরোধী উস্কানি এবং সমাবেশ আয়োজনে সহায়তার অভিযোগে আন্তর্জাতিক দুইটি সংস্থাকে এনজিও ব্যুরো রোহিঙ্গা ক্যাম্প সহ সারা দেশে সবধরনের কার্যক্রম নিষিদ্ধ করেছে। এছাড়া আরো দুইটি এনজিও প্রত্যাবাসন বিরোধী র্কমর্কান্ডে জড়িত রয়েছে। এগুলো হলো ওয়াল্ড ভিশন ও ইপসা নামের এনজিও। এসব এনজিওর বিরুদ্ধে তদন্তের দাবী জানিয়েছেন সচেতন মহল।

এ ব্যাপারে ওয়াল্ড ভিশনের উখিয়া অফিসের র্কমর্কতা আব্দুল বারী কোনো কিছু না বলে আমার অফিসে চা খেতে আসেন।
প্ল্যানের একাধিক র্কমর্কতার সাথে যোগাযোগ করে ও বক্তব্য দেয়নি।
এব্যাপারে উখিয়া উপজেলা নির্বাহী র্কমর্কতা নিকারুজ্জামান চৌধুরী রবিন বলেন প্ল্যান সহ পাঁচটি এনজিও কার্যক্রম খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক কামাল হোসেন বলেন যে সব সংস্থার বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে ব্যাপক অনুসন্ধান চালানো হচ্ছে।

দৈনিক দৈনন্দিন এ প্রকাশিত কোন ছবি,সংবাদ,তথ্য,অডিও,ভিডিও কপিরাইট আইনে অনুমতি ব্যতিরেখে ব্যবহার করা যাবে না ।

Copyright @ 2019

Development by: webnewsdesign.com

error: Content is protected !!