মাতারবাড়ি কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্পে উচ্ছেদকৃত ৪৫ পরিবারকে সহযোগিতার আশ্বাস জাইকার

বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০১৯ | ১২:৫৭ অপরাহ্ণ | 475 বার

মাতারবাড়ি কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্পে উচ্ছেদকৃত  ৪৫ পরিবারকে সহযোগিতার আশ্বাস জাইকার
Remove term: মাতারবাড়ি কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্প মাতারবাড়ি কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্প

মহেশখালী উপজেলার মাতারবাড়ী জলাবদ্ধতা নিরসনও কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্পের কারনে উচ্ছেদকৃত ৪৫ পরিবার সহ ক্ষতিগ্রস্তদের আর্থিক ভাবে সার্বিক সহযোগিতা ও স্থানীয়দের চাকুরী দেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন জাইকার প্রতিনিধি দল। তবে ৪ বছরে পার হয়ে গেলেও ক্ষতিগ্রস্তদের পূর্নবাসন না করায় জাইকা প্রতিনিধি দলের সাথে আলোচনা সভায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন স্থানীয়রা।
মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল সকাল ১১টায় মাতারবাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান মাষ্টার মোহাম্মদ উল্লাহ সভাপতিত্বে মজিদিয়া সুন্নীনিয়া আলিম মাদ্রাসার সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত এক সভায় ক্ষতিগ্রস্তের পক্ষে বক্তারা বলেন, আমাদের আকাশ কুসুম স্বপ্ন দেখিয়ে আমাদের জমি জমা প্রকল্পের জন্য দেওয়ার পরে আমাদের ক্ষতি পুরন পেতে এলও অফিসের বারান্দায় ঘুরতে ঘুরতে আমাদের পাযের সেন্ডেল ক্ষয় হয়ে গেছে কিন্তু উপযুক্ত ক্ষতিপূরন পায়নি।
প্রকল্পে উচ্ছেদকৃত ৪৪ পরিবারের পক্ষে বক্তব্য রাখেন হুমায়ারা বেগম বলেন, ২০১৪ সালে আমাদেরকে ৬ মাসের মধ্যে পূর্নবাসন সহ প্রতিটি পরিবার থেকে একজন করে চাকুরি দেয়ার কথা বলে উচ্ছেদ করা হয়েছিলো কিন্তু দুখের বিষয় আজ ৪ বছরের ও আমাদের কোন ধরনের পুর্ন বাসন বা চাকুরি দেয় নি সংশ্লিষ্টরা।
এছাড়াও ২১ ক্যাটাগরির ক্ষতি পূরনের কথা থাকলে ও নামে মাত্র ৪ ক্যাটাগরির ক্ষতিপূরণ দিচ্ছে বলে অভিযোগ করেন স্থানীয় চেয়ারম্যান মোহাম্মদ উল্লাহ।
সভায় আরো বক্তব্য রাখেন জাইকা প্রতিনিধি দলের পক্ষে মিস্টার হিরতা,মোকাম্মেল উদ্দিন, ফুজি মাগুরি, কোল পাওয়ারের নির্বাহী পরিচালক মোহাম্মদ আব্দুর রউফ, কোল পাওয়ারের প্রকৌশলী আনম ওবাইদুল্লাহ, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আবু হায়দার, ধলঘাটা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কামরুল হাসান, জেলা পরিষদ সদস্য মশারফা জান্নাত, মাষ্টার রফিকুল ইসলাম, মহিলা মেম্বার সকুনতাজ আতিক, সাংবাদিক সাহাব উদ্দিন, ইউপি সদস্য হামেদ হোছাইন ,জাকের হোসাইন ও বদিউল আলম প্রমুখ।
মাতারবাড়ির স্থানীয় ক্ষতিগ্রস্তদের অভিযোগ, আমরা প্রকল্পের কারনে প্রতি বছর র্বষা মৌসুম আসলে বৃষ্টির পানিতে ডুবে থাকি, আমরা কি এমন পাপ করেছি, আমাদের উপর এত র্নিমম অত্যাচার নেমে আসে প্রতি বছরে। জননেত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, মাতারবাড়ির মানুষদের কোন ধরনের হয়রানী বা ক্ষতিগ্রস্তদের যেনো দ্রুত ক্ষতি পূরন দেয়া হয়, আমরা মাতারবাড়ি বাসী নেত্রীর একটি কথাতে পুরো ১৪১৪ একর জমি দিয়েছি, প্রয়োজনে আরো দেবো তবুও যেনো যথাযথ ক্ষতি পূরন ও পুর্নবাসন করা হয়।

দৈনিক দৈনন্দিন এ প্রকাশিত কোন ছবি,সংবাদ,তথ্য,অডিও,ভিডিও কপিরাইট আইনে অনুমতি ব্যতিরেখে ব্যবহার করা যাবে না ।

Copyright @ 2019

Development by: webnewsdesign.com

error: Content is protected !!