এইমাত্র পাওয়া

x

মহেশখালীতে পরকিয়া প্রেমে বাঁধা : স্বামীকে খুন

শনিবার, ০৩ আগস্ট ২০১৯ | ৫:৫৮ অপরাহ্ণ | 379 বার

মহেশখালীতে পরকিয়া প্রেমে বাঁধা : স্বামীকে খুন

নিজের স্ত্রীকে পরকীয়া প্রেমে বাঁধা দেয়ায় শশুর বাড়িতে আপন শালা, শাশুড়ি, ও স্ত্রীসহ এবং স্ত্রীর প্রেমিক সহ কয়েক জন সন্ত্রাস বাহিনী মিলে লাতি কিল , ঘুষি ও ছুরিকাঘাতে মহেশখালী উপজেলার শাপলাপুর ইউনিয়নের ষাইটমারা এলাকার মকবুল আহমদের প্ত্রু আব্দুল মান্নান (৩৩) নামে এক ব্যাক্তিকে হত্যা খুন করেছে বলে অভিযোগ করেছে নিহতের পরিবার।

গত ১ আগষ্ট বৃহস্পতিবার সন্ধা ৭ টার সময় দক্ষিণ ষাইটমারা তার শাশুর বাড়িতে এই ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানায়, দক্ষিণ ষাইটমারা এলাকার সুমি আকতার কে বিয়ে করে আবদুল মান্নান। বিয়ের প্রথম দিকে তারা দুই জন স্বামী-স্ত্রী ভাল মত সংসার করলেও গত কয়েক মাস ধরে মান্নানের স্ত্রী সুমি আকতার স্থানীয় বাবুল নামের এক ছেলের সাথে পরকিয়া প্রেমে জড়িয়ে পড়ে। এর জের ধরে গত কয়েক দিন যাবৎ স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে মনো-মালিন্য চলছিল। একারনে সুমি আকতার তার বাপের বাড়ীতে চলে যায়। এরই মধ্যে মান্নানের স্ত্রী সুমির ফোন পেয়ে স্বামী মান্নান গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় তার শাশুর বাড়ীতে যান।

মান্নান তার স্ত্রীর কথা মত গত বৃহস্পতিবার শাশুর বাড়িতে বেড়াতে গেলে, সেখানে তার স্ত্রী সুমি আকতার এবং বাবুল নাম প্রেমিককে অনৈতিক কাজে হাতে নাতে ধরা পড়ে। এর প্রতিবাদ করায় স্ত্রী ক্ষুব্দ হয়ে তার কথিত প্রেমিক সহ মান্নানের শশুর বাড়ীর লোকজন মিলে মান্নান কে মারধর করে। এক পর্যায়ে মান্নান অজ্ঞান হয়ে মাটিতে পড়ে গেলে স্থানীয় লোকজন ও তার আত্বীয় স্বজন মান্নান কে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে দ্রুত কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে করে স্থানীয় ইউপি সদস্য মামুন জানান, স্ত্রীর পরকিয়া কাজে বাঁধা দেয়ার কারনে স্বামী-স্ত্রীর উভয়ে তর্কাতর্কিতে স্ত্রী ও শশুর বাড়ীর লোকজন সহ মান্নান কে মারধর করে আহত করে।

পরে তাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়ার পথে মান্নানের মৃত্যু হয় বলে জানান তিনি। বর্তমানে লাশ কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে রয়েছে বলে জানা গেছে। লাশের ময়না তদন্ত শেষে তাকে শাপলাপুরের ষাইটমারা নিজ গ্রামে দাপন করা হবে । এদিকে নিহত ব্যাক্তির পরিবার একটি হত্যা মামলা করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানা গেছে ।

দৈনিক দৈনন্দিন এ প্রকাশিত কোন ছবি,সংবাদ,তথ্য,অডিও,ভিডিও কপিরাইট আইনে অনুমতি ব্যতিরেখে ব্যবহার করা যাবে না ।

Copyright @ 2019

Development by: webnewsdesign.com

error: Content is protected !!