বদরখালীতে প্যারাবন কাটায় জড়িত লুটেরা চক্র : হয়রানির প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

সোমবার, ২০ জুলাই ২০২০ | ২:১০ অপরাহ্ণ | 88 বার

বদরখালীতে প্যারাবন কাটায় জড়িত লুটেরা চক্র : হয়রানির প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

চকরিয়া উপজেলার উপকুলীয় ইউনিয়ন বদরখালীতে সমিতির মালিকানাধীন লবণ মাঠ মৎস্য প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হবার মুর্হুতে প্রকল্প সংলগ্ন আশপাশ এলাকার প্যারাবন নিধনে মেতে উঠেছে স্থানীয় একটি লুটেরা চক্র। ইতোমধ্যে প্যারাবন নিধনের ঘটনাটি গণমাধ্যমে প্রচারিত হয়েছে। এতে অভিযুক্ত চক্রটি নিজেদের অপর্কম আড়াঁল করতে উল্টো সমিতির পরিচালিত ঘোনা কমিটির কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে দায় চাপানোর অপচেষ্ঠায় লিপ্ত হয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। গতকাল বিকালে বদরখালী সমিতির ৬, ৭ ৮ ও ৯নং ওয়ার্ডের অনুকুলে বরাদ্দপ্রাপ্ত লম্বাঘোনা লবণমাঠ চিংড়ি/মৎস্য প্রকল্প পয়েন্টে উন্মুর্থস্থানে সংবাদ সম্মেলনে এসব অভিযোগ তুলেছেন লম্বাঘোনা পরিচালনা কমিটির নেতৃবৃন্দ।
সংবাদ সম্মেলনে লম্বাঘোনা চার ওয়ার্ড সমন্বয়ে গঠিত পরিচালনা কমিটির সভাপতি সাবেক মেম্বার হেলাল উদ্দিন লিখিত অভিযোগ তুলে ধরেছেন। তিনি বলেন, বদরখালী সমিতির মালিকানাধীন বদরখালী দক্ষিণ মাথা ৯নং ওয়ার্ড সংলগ্ন বদরখালী সমবায় কৃষি ও উপনিবেশ সমিতি কর্তৃক ওয়ার্ড ভিত্তিক বরাদ্দকৃত ৬, ৭ ৮ ও ৯নং ওয়ার্ডের অনুকুলে বরাদ্দপ্রাপ্ত লম্বাঘোনা লবণমাঠ চিংড়ি/মৎস্য প্রকল্পটি তাঁরা চারটি ওয়ার্ডের ১৪ জনের একটি কমিটি পরিচালনা করে আসছেন। ২০১৭ সালের ১৭ আগস্ট উল্লেখিত প্রকল্পটি চুক্তির মাধ্যমে তিনবছর মেয়াদে ইজারা দিয়েছেন বদরখালী ৫নং ওয়ার্ডের দাতিনাখালী পাড়ার আলহাজ মাওলানা মকবুল আহমদের ছেলে মো.মঈন উদ্দিন ও ৯নং ওয়ার্ডের ছনুয়াপাড়ার মরহুম নজির আহমদের ছেলে মো.নুরুল কাইছারকে। ইজারা নেয়ার পর মঈন উদ্দিন ও নুরুল কাইছার প্রকল্পটি তদারকে জয়নাল আবেদিন নামের একজনকে কেয়ারটেকার নিয়োগ করে রক্ষনাবেক্ষন করে আসছেন।
লম্বাঘোনা পরিচালনা কমিটির সভাপতি সাবেক মেম্বার হেলাল উদ্দিন সংবাদ সম্মেলনে বলেন, প্রকল্পটির তিনবছর মেয়াদ আগামী মাসে অর্থাৎ ১৭ আগস্ট ২০২০ ইং তারিখে শেষ হবে। মেয়াদ শেষ হবার মুর্হুতে ইজারাদার পক্ষের কেয়ারটেকার জয়নাল আবেদিনের নেতৃত্বে নাপিতখালী পাড়ার ফরিদ আলম, আবদুল্লাহ, রুহুল কাদের, বাবুলসহ ১০-১২জনের একটি লুটেরাচক্র দুর্লোভের বশবর্তী হয়ে সম্প্রতি সময়ে লম্বাঘোনা প্রকল্প সংলগ্ন আশপাশ এলাকায় নতুন করে মৎস্যঘের তৈরীর পরিকল্পনার অংশ হিসেবে সেখান থেকে প্যারাবন নিধনে মেতে উঠেছে।
লম্বাঘোনা চার ওয়ার্ড সমন্বয়ে গঠিত পরিচালনা কমিটির সভাপতি সাবেক মেম্বার হেলাল উদ্দিন, সম্পাদক জাফর আলম, ৯নং ওয়ার্ড ঘোনা কমিটির সম্পাদক নুরুল ইসলাম, বদরখালী সমিতির সাবেক সহসভাপতি সাবেক ইউপি সদস্য মকবুল আহামদ, ৫নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি নুরুল হোছাইন, আ.লীগ নেতা মোহাম্মদ আলম, মাষ্টার আকতার হোছাইন, ফয়েজ আহামদ, আলহাজ্ব ইসমাইলসহ সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত সকলে অভিযোগ করেছেন, প্যারাবন কাটার ঘটনায় আমরা কোনমতে জড়িত নই।
উল্টো প্রকলটির ইজারা মেয়াদ শেষ হবার আগমুর্হুতে কেয়ারটেকার জয়নাল দুর্লোভের বশবর্তী হয়ে ন্যাক্কার জনক এ ঘটনাটি সংগঠিত করেছে। আর তাঁদের অপর্কম আড়াঁল করতে উল্টো ঘোনা কমিটির সভাপতি হেলাল মেম্বার ও ৯নং ওয়ার্ডের সম্পাদক নুরুল ইসলামের ইন্দনে বা নেতৃত্বে প্যারাবন কাটা হয়েছে মর্মে বিভিন্ন সংবাদপত্র এবং অনলাইন পোস্টার গুলোতে প্রকাশিত সংবাদে জড়িয়ে দিয়েছে। অভিযুক্ত জয়নাল প্রশাসন এবং পরিবেশ অধিদপ্তরের কাছে নিজের অপর্কম আঁড়াল করতে অতিকৌশলে গণমাধ্যমকর্মীদের কাছে সংবাদের কাল্পনিক তথ্য দিয়েছে।
সংবাদ সম্মেলনে নেতৃবৃন্দ প্যারাবন কাটার ঘটনায় পরিচালনা কমিটির সভাপতি হেলাল উদ্দিন ও নুরুল ইসলামকে জড়িয়ে প্রকাশিত সংবাদটি বানোয়াট ও ভিত্তিহীন বলে দাবি করেছেন। উল্লেখিত সংবাদের একাংশ থেকে তাদের দুইজনের নাম প্রত্যাহারের জন্যও দাবি তুলেছেন। নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে প্যারাবন কাটার ঘটনায় যারা জড়িত, তদন্তসাপেক্ষে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক, পরিবেশ অধিদপ্তর ও উপজেলা প্রশাসনের কাছে জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত লম্বাঘোনা পরিচালনা কমিটির নেতৃবৃন্দ বলেন, প্যারাবন কাটার ঘটনায় গণমাধ্যমে খবর প্রকাশের পর ইতোমধ্যে চকরিয়া উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভুমি) ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। সেখানে উপস্থিত হয়ে চার ওয়ার্ড সমন্বয়ে গঠিত ঘোনা কমিটির নেতৃবৃন্দ তাদের বক্তব্য দিয়েছেন। সেখানে পরিস্কারভাবে উঠে এসেছে প্যারাবন কাটার ঘটনায় জড়িতদের মুখোশ। সর্বশেষে নেতৃবৃন্দ ঘোনা পরিচালনা কমিটির কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে দায় চাপানোর অপচেষ্ঠায় লিপ্ত অভিযুক্ত চক্রটি বিরুদ্ধে আইনী প্রদক্ষেপ গ্রহনের প্রশাসনের কাছে জোরদাবি জানিয়েছেন সংবাদ সম্মেলনে।

দৈনিক দৈনন্দিন এ প্রকাশিত কোন ছবি,সংবাদ,তথ্য,অডিও,ভিডিও কপিরাইট আইনে অনুমতি ব্যতিরেখে ব্যবহার করা যাবে না ।

Copyright @ 2020

Development by: webnewsdesign.com

error: Content is protected !!