পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটির রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন

শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯ | ৯:৫২ অপরাহ্ণ | 75 বার

পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটির রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন

বন ও পাহাড় কেটে রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেয়ার কারণে পরিবেশের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি সংসদ সদস্য সাবের হোসেন চৌধুরী।

বৃহস্পতিবার দুপুরে কক্সবাজারের উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের কাছে তিনি এ কথা বলেন।
সংসদ সদস্য সাবের হোসেন বলেন, রোহিঙ্গাদের বসতি স্থাপন এবং নানা স্থাপনা তৈরীর কারণে পরিবেশের যে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে তা পুরোপরি পূরণ করা সম্ভব নয়। তবে পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় যতটুকু সম্ভব সেই লক্ষ্যে ক্ষতির পরিমান নির্ধারণ ও যাচাই-বাছাইয়ের কাজ চলছে।

এরপরই পরিবেশের ক্ষয়ক্ষতি পুষিয়ে নিতে সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞরা কাজ করবেন জানান স্থায়ী কমিটির এ সভাপতি।
রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনকালে সাবের হোসেন চৌধুরীর সঙ্গে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটির প্রতিনিধি দলের সদস্যরাও উপস্থিত ছিলেন।
এদের মধ্যে ছিলেন কক্সবাজার-০১ আসনের সংসদ সদস্য জাফর আলম, রেজাউল করিম বাবুল (বগুড়া), সংরক্ষিত নারী সংসদ সদস্য খাদিজা বেগম প্রমুখ।

এর আগে সকাল ৯ টায় স্থায়ী কমিটির সভাপতি সাবের হোসেন চৌধুরীর নেতৃত্বে প্রতিনিধি দলের সদস্যরা ঢাকা থেকে বিমান যোগে কক্সবাজার বিমানবন্দরে পৌঁছান। পরে সেখান থেকে প্রতিনিধি দলটির সদস্যরা উখিয়ার রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনে যান। ক্যাম্পে পৌঁছার পর সংশ্লিষ্ট সরকারি কর্মকর্তা এবং বিভিন্ন এনজিও সংস্থার প্রতিনিধিদের সঙ্গে দলটি বৈঠক করেন। এরপর কুতুপালং মধুরছড়া এলাকার বিভিন্ন রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন করেন তারা।
উখিয়ায় রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেয়ার কারণে সেখানকার পরিবেশ, জীববৈচিত্রের যে ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বিশেষজ্ঞ দ্বারা তার পরিমাণ যাচাইয়ের জন্য সুপারিশ করে কমিটি।

পরিদর্শনকালে পরিবেশ,বন ও জলবায়ূ পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব প্রধান বন সংরক্ষক মোহাম্মদ সফিউল আলম চৌধুরী, পরিবেশ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. একে এম রফিক আহম্মদ, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দসহ কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের পদস্থ সরকারি কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

দৈনিক দৈনন্দিন এ প্রকাশিত কোন ছবি,সংবাদ,তথ্য,অডিও,ভিডিও কপিরাইট আইনে অনুমতি ব্যতিরেখে ব্যবহার করা যাবে না ।

Copyright @ 2019

Development by: webnewsdesign.com

error: Content is protected !!