এইমাত্র পাওয়া

x

টেকনাফে বন্দুকযুদ্ধে মাদক কারবারি নিহত

রবিবার, ২১ জুলাই ২০১৯ | ৮:৩৩ অপরাহ্ণ | 148 বার

টেকনাফে বন্দুকযুদ্ধে মাদক কারবারি নিহত

কক্সবাজারের টেকনাফে পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে মাদক মামলার এক আসামী নিহত এবং পুলিশের তিন
সদস্য আহত হয়েছে।

এসময় ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার হয়েছে ইয়াবাসহ অস্ত্র ও গুলি।

রোববার ভোর রাতে টেকনাফ উপজেলার হোয়াইক্যং ইউনিয়নের সাতঘরিয়া পাড়া সংলগ্ন শিয়াইল্ল্যা ঘোনার পাহাড়ী এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটে বলে জানান টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ।

নিহত মোহাম্মদ হোছন (৩৯) টেকনাফের হোয়াইক্যং ইউনিয়নের সাতঘরিয়া পাড়ার মৃত আনু মিয়ার ছেলে।

আহত পুলিশ সদস্যরা হল, এএসআই অহিদ উল্লাহ, কনস্টেবল সজীব সরকার ও কনস্টেবল মনির হোসেন।

পুলিশ জানিয়েছে, মোহাম্মদ হোছন একজন চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ি। সে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তালিকাভূক্ত ইয়াবা ব্যবসায়ি। মাদক ব্যবসায় জড়িত অভিযোগে তার বিরুদ্ধে একাধিক মামলা রয়েছে।

ওসি প্রদীপ বলেন, শনিবার সন্ধ্যায় মাদক মামলার পলাতক আসামী মোহাম্মদ হোছন এলাকায় অবস্থান করছে খবরে পুলিশের একটি দল অভিযান চালিয়ে গ্রেপ্তার করে। পরে তাকে থানায় আনার পর জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। এতে সে হোয়াইক্যং ইউনিয়নের সাতঘরিয়া পাড়ার সংলগ্ন শিয়াইল্ল্যা ঘোনার পাহাড়ী এলাকায় ইয়াবার একটি মজুদ রাখার তথ্য স্বীকার করে।

“ রোববার ভোর রাতে পুলিশের একটি দল মোহাম্মদ হোছনকে নিয়ে ইয়াবা উদ্ধারে অভিযানে যায়। এসময় ঘটনাস্থলে পৌঁছামাত্র তার সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়ে। পুলিশও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি ছুড়ে। এক পর্যায়ে মাদক ব্যবসায়িরা গুলি ছুড়তে ছুড়তে পিছু হটে। ঘটনাস্থলে মোহাম্মদ হোছনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পাওয়া যায়। এতে পুলিশের ৩ সদস্য আহত হয়। এসময় ঘটনাস্থলে তল্লাশী করে পাওয়া যায় ২ টি দেশিয় তৈরী বন্দকু, ৯ টি গুলি, ১২ টি গুলির খোসা এবং ২ হাজার ইয়াবা। ”

ওসি বলেন, “ গুলিবিদ্ধ ও আহতদের উদ্ধার টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মোহাম্মদ হোছনকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন। পরে সেখানে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ”

প্রদীপ জানান, মোহাম্মদ হোছন একজন চিহ্নিত ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তালিকাভূক্ত ইয়াবা ব্যবসায়ি। মাদক ব্যবসার অভিযোগে তার বিরুদ্ধে ৬ টির বেশী মামলা রয়েছে। এসব মামলায় সে দীর্ঘদিন ধরে এলাকা ছাড়া ছিল।

নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে রয়েছে বলে জানান ওসি।

দৈনিক দৈনন্দিন এ প্রকাশিত কোন ছবি,সংবাদ,তথ্য,অডিও,ভিডিও কপিরাইট আইনে অনুমতি ব্যতিরেখে ব্যবহার করা যাবে না ।

Copyright @ 2019

Development by: webnewsdesign.com

error: Content is protected !!