টেকনাফে কালভার্টে গর্ত : দেখার কেউ নেই

সোমবার, ১৫ জুন ২০২০ | ২:৪২ অপরাহ্ণ | 70 বার

টেকনাফে কালভার্টে গর্ত : দেখার কেউ নেই

টেকনাফ উপজেলার বাহারছড়া ইউপি নোয়াখালী পাড়া কালভার্টের মাঝখানে ছোট-বড় গর্ত। দিনে কোনো রকমে হেঁটে পার হওয়া গেলেও রাতে একটু বে-খেয়াল হলেই পড়তে হয় দুর্ঘটনায়। তারপরও প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ ও শত শত যান চলাচল করছে এই কালভার্ট দিয়ে। এ অবস্থা চলছে দীর্ঘ দুই বছর ধরে। যে কোনো মুহূর্তে ঝুঁকিপূর্ণ কালভার্টটি ধসে যেতে পারে। এতে যানচলাচলসহ পারাপারে মারাত্মক দুর্ঘটনার শঙ্কা দেখা দিয়েছে। কিন্তু সেদিকে কারো কোনো নজর নেই।
এমন করুণ হাল উপজেলার বাহারছড়া ইউনিয়নের নোয়াখালী পাড়ার টেকনাফ-শামলাপুর এলজিইডি সড়কের ইলিয়াছ কোবরা বাজার সংলগ্ন কালভার্টটি ছোট হলেও এর ওপর দিয়ে হাজার হাজার মানুষ ও শত শত যানববাহন চলাচল করে থাকে। এছাড়াও পান, সুপারি ও মৎস্য পরিবহণের গাড়ি ও পারাপার হয় প্রতিদিন। গত দুই বছর আগে কালভার্টটি ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়ে। বর্তমানে এ কালভার্টটির মাঝে গর্ত সৃষ্টি হয়ে আরো মারাত্মক আকার ধারণ করেছে। কালভার্টটি সঠিকভাবে পরিকল্পনা ও টেকসই ভাবে নির্মিত না হওয়ায় দীর্ঘদিন ধরে মারাত্মক ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে।
গুরুত্বপূর্ণ সড়কের এই কালভার্টটি পাশে এতই ছোট যে দুটি রিকশা পর্যন্ত এক সঙ্গে চলাচল করতে পারে না।মালবাহী গাড়ি তো দূরের কথা যাত্রীবাহী কোনো গাড়ি কালভার্ট দিয়ে যাওয়া অনুপযোগী হয়ে পড়েছে।বিভিন্ন সময় ঘটছে দুর্ঘটনাও, এসব দুর্দশা দেখার যেন কেউ নেই!
নোয়াখালী পাড়ার বাসিন্দা মোহাম্মদ জাকির হোসেন বলেন, আশপাশের লোকজন চাঁদা তুলে মাঝেমধ্যে কালভার্টটি ভাঙন অংশে গাছ, বাঁশ ও বালু দিয়ে মেরামত করে। কিন্তু কয়েক দিন পর সেগুলো আবার ভেঙে যায়। ফলে কষ্ট থেকেই যাচ্ছে। রাতে সেতু পার হওয়ার সময় খুবই সতর্ক থাকতে হয়। অসতর্ক হলে গর্তে পড়ে দুর্ঘটনার আশঙ্কা রয়েছে। এরইমধ্যে বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন।
নোয়াখালী এলাকার বাসিন্দা ল্যান্ড ব্যবসায়ী আব্দুল শুক্কুর বলেন, কালভার্টটি খুব গুরুত্বপূর্ণ। ঝ্ূঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে। গত দুই বছর ধরে। জনপ্রতিনিধি আসে আর যায় কারো যেন মাথাব্যথা নেই। এভাবে কালভার্টটি পড়ে থাকলে বড় ধরণের দূর্ঘটনার আশঙ্কা রয়েছে।
এ ব্যাপারে বাহারছড়া ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার মোহাম্মদ ইলিয়াছ বলেন, গত দুই বছর ধরে উপজেলা বিভিন্ন দপ্তরে কালভার্টটি সংস্কারের জন্য একাধিকবার অবহিত করা হয়েছে।কিন্তু এখনও সংস্কার হয়নি। তিনি আরো বলেন, দ্রুত সমস্যার সমাধান ও দুর্ঘটনা এড়াতে এই পয়েন্টে টেকসই নতুন কালভার্ট নির্মাণের জন্য স্থানীয় সরকার ও প্রকৌশল অধিদফতর এবং উপজেলা প্রশাসনের কাছে জোর দাবি জানান।

দৈনিক দৈনন্দিন এ প্রকাশিত কোন ছবি,সংবাদ,তথ্য,অডিও,ভিডিও কপিরাইট আইনে অনুমতি ব্যতিরেখে ব্যবহার করা যাবে না ।

Copyright @ 2020

Development by: webnewsdesign.com

error: Content is protected !!