জাহানারা আলমের ‘বল অব দ্য টুর্নামেন্ট!’

রবিবার, ১২ মে ২০১৯ | ১২:৫৫ অপরাহ্ণ | 168 বার

জাহানারা আলমের ‘বল অব দ্য টুর্নামেন্ট!’

ফাইনাল ম্যাচটা জিততে পারেনি তার দল। তবে ফাইনালে তার বোলিং। দুটো উইকেট। দুর্দান্ত কিছু ডেলিভারি। ম্যাচে প্রভাব। সবকিছু মিলিয়ে জাহানারা আলমের জন্য জয়পুরে উইমেন্স টি-টুয়েন্টির ফাইনাল স্মরণীয় হয়ে রইলো।

প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে জাহানারা আলম বিদেশি কোনো টি-টুয়েন্টি ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগে খেলতে যান। টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচে একাদশে জায়গা হয়নি তার। দ্বিতীয় ম্যাচে তেমন ভালো পারফর্ম করতে পারেননি। ফাইনালে দল জেতেনি, কিন্তু জাহানারা আলমের পারফরমেন্স জানাচ্ছে ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেটে সামনের দিনে বাংলাদেশি এই পেসারকে অনেকেই দলে নিতে চাইবে।

উইমেন্স টি-টুয়েন্টির ফাইনালে শনিবার রাতে তার ভেলেসিটিকে ৪ উইকেটে হারিয়ে শিরোপা জিতেছে সুপারনোভা। ম্যাচে ৪ ওভারে জাহানারা ২১ রানে পান ২ উইকেট। শুরুর তিন ওভার দুর্দান্ত বোলিং করেন তিনি। এই সময় তার বোলিং স্পেল ছিলো এমন ৩ ওভারে ৮ রানে ২ উইকেট! শেষের ওভারে ১৩ রান দেন জাহানারা।

ফাইনালের ষষ্ঠ ওভারে অর্থাৎ পাওয়ার প্লে’র শেষ ওভারে ভেলেসিটি অধিনায়ক মিতালি রাজ তার হাতে বল তুলে দেন। সেই ওভারে মাত্র ১ রান দেন জাহানারা। ১২ নম্বর ওভারে আসেন নিজের দ্বিতীয় ওভার করতে। এবার পেলেন প্রথম সাফল্য। সেই ওভারে ৪ রান খরচ হলো তার। বোল্ড করলেন এনআর সেইভারকে।

৪২ বলে সুপারনোভার ম্যাচ জিততে চাই ৬১ রান। হাতে জমা ৬ উইকেট। এমন সময় জাহানারা এলেন ম্যাচে নিজের তৃতীয় ওভার করতে। মাত্র ৩ রান খরচায় সেই ওভারে আরেকটি উইকেট পেলেন জাহানারা। সুপারনোভার মারকুটো ব্যাটসম্যান ডিভাইনকে যে কায়দায় বোল্ড করলেন সেই বলকে বলা হচ্ছে ‘বল অব দ্য টুর্নামেন্ট!’

ব্যাটের ফেস ওপেন করে দিয়ে অফ সাইডে খেলার চেষ্টা করেন ডিভাইন। কিন্তু বল ডেলিভারি দেয়ার শেষ মূর্হূতে কব্জির মোচড়ে বলটা সিমের ওপর ফেলেন জাহানারা। অফস্ট্যাম্পের লাইনে পড়া প্রথম স্লিপের দিকে যাওয়া বলে ব্যাট ছোঁয়াতে ব্যর্থ হন ডিভাইন। লেন্থ মিস করেন তিনি। একটু নিচু হওয়া বলটা স্ট্যাম্প ভেঙ্গে দেয়। দুই হাত উঁচিয়ে সাফল্যের আনন্দে মাতেন জাহানারা।

ম্যাচের গুরুত্বপূর্ণ সময়ে এমন পারফেক্ট ভেলিভারি! স্লো মোশনে বেশ কয়েকবার সেই আউট দেখার পর ধারাভাষ্যকাররাও সিদ্ধান্তে পৌঁছান-পুরো টুর্নামেন্টের সেরা বল এটা!

তার সেই ডেলিভারিকে এই মর্যাদা দেয়ায় ম্যাচ শেষে জাহানারা আলম বলেন-‘এটা আমার জন্য অনেক বড় একটা স্বীকৃতির বিষয়। এই টুর্নামেন্ট এবার আমরা জিততে পারিনি। আমার হয়তো আরো ভালো পারফর্ম করা উচিত ছিলো। সামনের সময়ে সেই দুঃখ কাটিয়ে উঠতে পারবো। এবার সময়টা ছিলো সুপারনোভার। কি আর করা, নিজের ভাগ্যকে তো আর আপনি বদল করতে পারবেন না!’

ডিভাইনকে বোল্ড করার সেই ওভার প্রসঙ্গে জাহানারা বলেন-‘ওদের তখন বলের চেয়ে রানের টার্গেট বেশি ছিলো। আমার লক্ষ্য ছিলো ওই ওভারে বেশি করে ডট বল আদায় করা। সেই ওভারটা আমার ভালোই হয়েছে। কিন্তু নিজের শেষ ওভারে রান খরচা একটু বেশি হয়ে গেছে।

দৈনিক দৈনন্দিন এ প্রকাশিত কোন ছবি,সংবাদ,তথ্য,অডিও,ভিডিও কপিরাইট আইনে অনুমতি ব্যতিরেখে ব্যবহার করা যাবে না ।

Copyright @ 2019

Development by: webnewsdesign.com

error: Content is protected !!