চকরিয়ায় বৃদ্ধ নির্যাতনকারি গ্রেফতার

বুধবার, ১০ জুন ২০২০ | ২:০৯ অপরাহ্ণ | 45 বার

চকরিয়ায় বৃদ্ধ নির্যাতনকারি গ্রেফতার
চকরিয়ায় তুচ্ছ ঘটনার জেরে যুবলীগ নেতা কর্তৃক এক বৃদ্ধকে বিবস্ত্র করে মারধর করার ঘটনার মূলহোতাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।
বুধবার ভোরে মহেশখালী উপজেলার শাপলাপুর ইউনিয়নের সাইটমারা এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে জানান চকরিয়া থানার পরিদর্শক (ওসি) মো. হাবিবুর রহমান।
গ্রেপ্তার আনছুর আলম (৩৫) চকরিয়া উপজেলার ঢেমুশিয়া ইউনিয়নের ছয়কুড়িটিক্কা পাড়ার মৃত মনির উল্লাহ’র ছেলে।
সে ঢেমুশিয়া ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি। তার বিরুদ্ধে এলাকায় ডাকাতি, চাঁদাবাজী ও জবরদখলসহ নানা অভিযোগে চকরিয়া থানায় ১২ টির বেশী মামলা রয়েছে।
তবে ঘটনার পরপরই আনছুর আলমকে যুবলীগ স্থায়ীভাবে বহিস্কার করে।
নির্যাতনের শিকার বৃদ্ধ নুরুল আলম (৭২) ঢেমুশিয়া ইউনিয়নের একই এলাকার মৃত আলী মিয়ার ছেলে।
এর আগে গত ৩ জুন চকরিয়ার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে ঘটনায় জড়িত সন্দেহে মোহাম্মদ বেলাল, কায়ছার উদ্দিন ও মোহাম্মদ ফারুক নামের ৩ জনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।
গত ২৪ মে ঢেমুশিয়া স্টেশন থেকে ঈদের কেনাকাটা শেষে ইজিবাইক (টমটম) যোগে বাড়ী ফেরার পথে গাড়ী থেমে নামিয়ে নির্জন স্থানে নিয়ে বৃদ্ধ নুরুল আলমকে (৭২) বিবস্ত্র করে মারধর করে ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতি আনছুর আলম। মারধরের সময় বৃদ্ধের পরনের লুঙ্গি ও গেঞ্জি টেনে হিঁচড়ে ছিড়ে ফেলার পাশাপাশি অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ করা হয়।
এসময় ঘটনাস্থলে উপস্থিত থাকা কয়েকজন যুবক মারধরের দৃশ্যটি মোবাইলে ধারণ করছিল। ঘটনাটি আশপাশে থাকা বেশকিছু যুবক প্রত্যক্ষ করলেও কেউ বৃদ্ধ নুরুল আলমকে রক্ষায় এগিয়ে আসেনি।
তবে এ ঘটনার ভিডিও চিত্র মঙ্গলবার ( ২ জুন) সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে ভাইরাল হওয়ার পর নানা মহলে ব্যাপক প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়।
ঘটনার পর গত ৩১ মে রাতে নির্যাতনের শিকার বৃদ্ধের ছেলে আশরাফ হোসাইন বাদী হয়ে যুবলীগ নেতা আনছুর আলমসহ ৮ জনকে আসামী করে চকরিয়া থানায় এজাহার দায়ের করেছিলেন।
ওসি হাবিবুর বলেন, বুধবার ভোর রাতে মহেশখালীর শাপলাপুর ইউনিয়নের সাইটমারা এলাকায় একটি বাড়ীতে আনছুর আলম আত্মগোপনে থাকার খবরে চকরিয়া থানা পুলিশের একটি দল অভিযান চালায়। এসময় ঘটনাস্থলে পৌঁছলে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে সে দৌঁড়ে পালানোর চেষ্টা করে। পরে তাকে ধাওয়া দিয়ে পুলিশ গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়।
” গ্রেপ্তার আনছুর আলম চকরিয়ার ঢেমুশিয়া ইউনিয়নের ছয়কুটিক্কা পাড়ার বৃদ্ধ নুরুল আলমকে বিবস্ত্র করে মারধর করার ঘটনার মূলহোতা। এ ঘটনায় দায়ের মামলায় সে এহাজারভূক্ত ২ নম্বর আসামী। “
ওসি বলেন, ” বৃদ্ধ নুরুল আলমকে নির্যাতনের ঘটনায় গত ৩১ মে তার ছেলে আশরাফ হোসাইন বাদী হয়ে থানায় একটি এজাহার দায়ের করেন। এতে ৮ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত ৪/৫ জনকে আসামী করা হয়। “
” পরে ঘটনাটি তদন্তের পর গত ৩ জুন মামলাটি নথিভূক্ত করা হয়। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে পুলিশ এর আগে আরো ৩ জনকে গ্রেপ্তার করেছিল। “
এছাড়া মামলার এজাহারভূক্ত আসামীদের পাশাপাশি ভিডিও চিত্রটি দেখে ঘটনায় জড়িত অন্যদেরও গ্রেপ্তারে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে বলেন হাবিবুর।
ওসি জানান, আনছুর আলম একজন চিহ্নিত ডাকাত ও সন্ত্রাসী। ডাকাতি, চাঁদাবাজী ও জবরদখল সহ নানা অভিযোগে তার বিরুদ্ধে ১২ টি মামলা রয়েছে।
এদিকে ঘটনার মূল হোতা ওয়ার্ড যুবলীগ নেতা আনছুর আলম একজন সুযোগ সন্ধানী এবং সংগঠনে অনুপ্রবেশকারি উল্লেখ করে চকরিয়া উপজেলা যুবলীগ সভাপতি কাউছার উদ্দিন কছির বলেন, আনছুরের বিরুদ্ধে সম্প্রতি চাঁদাবাজী ও ডাকাতিসহ নানা অপরাধে জড়িত থাকার অভিযোগ উঠেছে। সংগঠনের দায়িত্বশীলরা তার অপকর্ম সম্পর্কে আগে অবহিত ছিল না।
ঘটনাটি শোনার পরপরই আনছুরকে প্রাথমিক সদস্য পদসহ সংগঠন থেকে স্থায়ীভাবে বহিস্কার করা হয়েছে বলে জানান উপজেলা যুবলীগের এ নেতা।

দৈনিক দৈনন্দিন এ প্রকাশিত কোন ছবি,সংবাদ,তথ্য,অডিও,ভিডিও কপিরাইট আইনে অনুমতি ব্যতিরেখে ব্যবহার করা যাবে না ।

Copyright @ 2020

Development by: webnewsdesign.com

error: Content is protected !!