চকরিয়ায় ঢাবি ছাত্রীসহ ১৭ ডেঙ্গু রোগী সনাক্ত

সোমবার, ০৫ আগস্ট ২০১৯ | ৩:৪৪ অপরাহ্ণ | 187 বার

চকরিয়ায় ঢাবি ছাত্রীসহ ১৭ ডেঙ্গু রোগী সনাক্ত

চকরিয়ায় দিনদিন ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা বেড়ে চলছে। রোববার (৪আগস্ট) পর্যন্ত উপজেলার সরকারী ও বেসরকারী হাসপাতালে মহিলাসহ ১৭ জন ডেঙ্গু রোগী সনাক্ত হয়েছে। তৎমধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী জান্নাত হাকিমসহ দুইজন রাজধানী আক্রান্ত হয়ে চকরিয়ায় আসে। বাকী ১৫জন চকরিয়ায় সনাক্ত হয়।

ডেঙ্গু সনাক্ত পরীক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় কিট বেসরকারী হাসপাতালে পর্যাপ্ত থাকলেও সরকারী হাসপাতালে সংকট রয়েছে। কোরবানীর ঈদের ছুটিতে ঢাকা থেকে নিকটাত্মীয়রা ঘরে ফিরলে ডেঙ্গু রোগ আরো বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছেন সচেতনমহল ।
চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য প. প. কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ শাহবাজ বলেন, ‘৩ আগস্ট সরকারী হাসপাতালে পরীক্ষা করে ডেঙ্গুু রোগী ধরা পড়ে দুইজন। তৎমধ্যে মহেশখালীর ছৈয়দ আহমদের ছেলে সায়েবুর রহমান (৩০) ও চকরিয়ায় নির্মাণাধীন রেলওয়ের কর্মচারী চাঁদপুরের বাসিন্দা আসাদ আলীর পুত্র শফিউল্লাহ (৫৫)।

এছাড়া রাজধানী থেকে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী চকরিয়া পৌরসভার লোকমান হাকিমের মেয়ে জান্নাত হাকিম (২২)চকরিয়া হাসপাতালে আসে।

ডা.শাহবাজ আরও বলেন, সরকারী হাসপাতালে ইতিমধ্যে বরাদ্দ পাওয়া কিট শেষ হওয়ার পর রবিবার ৪ আগস্ট আরো বিশটি কিট বরাদ্দ পেয়েছি। কিন্তু যে পরিমাণ নারী-পুরুষ ডেঙ্গু পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে আসছে তাতে ওই কিট দুই দিনেই শেষ হয়ে যাবে। তাই আরো কিট বরাদ্দ চাওয়া হয়েছে।

চকরিয়াস্থ শেভরণ ক্লিনিক্যাল ল্যাবরেটরীতে ৭ জন ডেঙ্গু রোগী সনাক্ত হয়েছে বলে ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) নুরুল কবির নিশ্চিত করেছেন।

মা ও শিশু হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মো. জাকারিয়া বলেন, ঢাকায় ডেঙ্গু আক্রান্ত এক রোগী এই বেসরকারী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে।

জমজম হাসপাতালের এমডি গোলাম কবির বলেন, গত চার দিনে এই বেসরকারী হাসপাতালে ডেঙ্গুু আক্রান্ত ৬ নারী পুরুষ সনাক্ত হয়েছে। তৎমধ্যে হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে নারীসহ দুই জন সুস্থ হয়ে বাড়ী ফিরেছে।’

চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নুরুদ্দীন মুহাম্মদ শিবলী নোমান বলেন, ‘রাজধানী ঢাকায় ডেঙ্গু রোগী বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে চকরিয়ায় ডেঙ্গু প্রতিরোধে ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়। পুরো চকরিয়া পরিস্কার অভিযানসহ স্থানীয় মশা নিধন কার্যক্রম শুরু হয়েছে।’

এদিকে কোরবানীর ঈদে ঢাকা থেকে চকরিয়াস্থ ঘরে ফেরা আত্মীয়রা জ্বর বা ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে ফিরছে কিনা তথ্য উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও উপজেলা প্রশাসনকে অবহিত করতে জনপ্রতিনিধিদের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। এছাড়া ডেঙ্গু সচেতনতা বাড়াতে নানাভাবে ব্যাপক প্রচারণা অব্যাহত রয়েছে। বিভিন্ন সরকারী, বেসরকারী, এনজিও, স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন প্রচারপত্র বিলি করেছেন।

দৈনিক দৈনন্দিন এ প্রকাশিত কোন ছবি,সংবাদ,তথ্য,অডিও,ভিডিও কপিরাইট আইনে অনুমতি ব্যতিরেখে ব্যবহার করা যাবে না ।

Copyright @ 2019

Development by: webnewsdesign.com

error: Content is protected !!